জীবন ও স্বাস্থ্য ফিচার্ড

বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রসঙ্গে    

বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রসঙ্গে

বৈশ্বিক মহামারী করুনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) সাড়া বিশ্বজুড়ে এখনও একটি বহুল আলোচিত  উৎকন্ঠা, দুশ্চিন্তা ও  আলোচ্য বিষয়। এক বছর পাঁচ মাসের বেশি সময় ধরে বিশ্বজুড়ে ভয়ানক তাণ্ডব চালিয়ে যাচ্ছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯ )। মাঝে করোনাভাইরাসের প্রকোপ কিছুটা কমলেও  রূপ পরিবর্তন করে বারংবার নূতন ধরণ নিয়ে (Variants ) আরও শক্তিশালী হয়ে ফিরে এসেছে এই মহামারী ভাইরাস। আবারও ভয়াবহ তাণ্ডব চালাচ্ছে বিশ্বব্যাপী। এতে ফের নাকাল হয়ে পড়েছে বিশ্ববাসী।

অতীতে কোনও মহামারী ভাইরাস সারা বিশ্বের সকল দেশের ও সকল অঞ্চলের মানুষের মধ্যে এমন ভয়াবহ আশংকা, দুশ্চিন্তা ও উৎকন্ঠা ছড়ায়নি। মানবদেহে ভ্যাকসিন প্রয়োগের পরও নূতন ধরণ নিয়ে আবির্ভূত হওয়া এবং নিজের প্রতিরূপ তৈরি করে দ্রুত সংখ্যা বৃদ্ধি করতে পারার জন্য কোনভাবেই যেন বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসকে নিয়ন্ত্রন করা যাচ্ছেনা। তবে কয়েকটি দেশ  যেমন পশ্চিম ইউরেোপের দেশগুলো যেমন ফ্রান্স, ইতালী, জাার্মানী, স্পেন, সুইডেন, নরওয়ে, ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ড, সুইজারল্যান্ন্ড , উওর আমেরিকার কানাাডা, যুক্তরাষ্ট্র করোনার সংক্রমণ অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়েছে এবং এসব উন্নত দেশগুলোতে  করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে কার্যকর ও নিরাপদভাবে রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে সক্ষম ফাইজার-বায়োএনটেক,মডারনার  , Oxford and এট্রোজেনেকার ভ্যাকসিন  দেওয়া কার্যক্রম শুরু হয়েছে খুবই সাফল্যের সাথে। দুঃখজনক হলেও সত্যি, আফ্রিকার  অনেক দরিদ্র দেশের ১% লোককে এখনও ভ্যাকসিন  দেওয়া সম্ভব হয়নি। বাংলাদেশ, ভারত, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম, দক্ষিণ আমেরিকা ও আফ্রিকার কয়েকটি দেশে করোনার  সংক্রমণ বাড়ছে। W.H. O মতে ভারতের ডেল্টা Variant বা ধরণটা বর্তমানে খুবই উদ্বেগজনক ও দ্রূত সংক্রমণ ছড়াচ্ছে কয়েকটি দেশে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, সর্বশেষ ২০ জুলাই  ২০২১ খ্রী: মঙ্গলবার কানাডার সময় সকল ১১ টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিশ্বে ২২০টি দেশ ও অঞ্চলে বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসে মোট শনাক্তের সংখ্যা  বেড়ে ১৯ কোটি ১৮ লাখ ৯৮ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। । করোনাভাইরাসে বিশ্বে  মৃত্যু সংখ্যা বেড়ে বর্তমানে দাড়িয়েছে ৪১ লাখ ১৬ হাজারের অধিক মানুষ। একই সাথে সুখবর হল এই যে, বিশ্বব্যাপী এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৭  কোটি ৪৬ লক্ষ  ৯৯ হাজারের অধিক মানুষ।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, ২০ জুলাই  ২০২১ খ্রী: মঙ্গলবার কানাডার সময় সকল ১১ টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শনাক্তের দিক দিয়ে বিশ্বের প্রথম ১২টি দেশের তালিকার সাথে মৃত্যুর সংখ্যা ও সুস্থ হওয়ার তালিকা + কানাডা ও বাংলাদেশের  তালিকা এখানে দেওয়া হল। ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, ২০জুলাই  ২০২১ খ্রী: কানাডার সময় সকালের এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর সংখ্যা হল যুক্তরাষ্ট্রে অর্থাৎ ৬ লাখ ২৪ হাজার ৯৯২ জন যুক্তরাষ্ট্রে মারা গেছেন। বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যাও এই যুক্তরাষ্ট্রে। ক্ষমতাধর এ দেশটিতে এ পর্যন্ত ৩ কোটি ৫০ লাখ ১৯ হাজার ৩২৬ জন শনাক্ত হয়েছেন এবং যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৯৪ লক্ষ ৭ হাজারের অধিক মানুষ। শনাক্তের দিক থেকে ২য় অবস্থানে থাকা ভারতে এ পর্যন্ত করোনায় ৩ কোটি ১১ লাখ ৮১ হাজারের বেশি মানুষ সংক্রমিত হয়েছেন। একই সাথে ভারতে এ পর্যন্ত মারা গেছে ৪ লাখ ১৪ হাজার ৬৫৭ জন এবং ভারতে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩ কোটি ৩ লাখ ৫৩ হাজার ৭১০ জন। ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী ২০ জুলাই  ২০২১ খ্রী: মঙ্গলবার কানাডার সময় সকল ১১ টার রিপোর্টে শনাক্তের দিক থেকে তৃতীয় অবস্থানে থাকা দক্ষিণ আমেরিকার বৃহওম দেশ ব্রাজিলে এ পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ১ কোটি ৯৩ লাখ ৯১ হাজার ৮৪৫ জন,  মৃত্যুর দিক থেকে বিশ্বে ২য় স্থানে থাকা ব্রাজিলে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৪২ হাজার ৮৭৭ জন  এবং ব্রাজিলে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ৮০ লাখ  ৬৭ হাজার ৮০ জন। শনাক্তের দিক থেকে বিশ্বে বর্তমানে চতুর্থ স্থানে থাকা আয়তনে দিক দিয়ে বিশ্বের বৃহওম দেশ রাশিয়ায় করোনায় এ পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ৬০ লাখ ৬ হাজার  ৫৩৬ জন,  এ পর্যন্ত রাশিয়ায় মারা গেছেন ১ লাখ ৪৯ হাজার ৯২২ জন এবং রাশিয়ায় এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৫৩ লাখ ৮২ হাজার ২১৩ জন। শনাক্তের দিক থেকে পঞ্চম স্হান পশ্চিম ইউরোপের বৃহত্তম দেশ ফ্রান্সে এ পর্যন্ত করোনায় সংক্রমণের সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে ৫৮ লাখ  ৭১ হাজার ৮৮১ জন। এ পর্যন্ত ফ্রান্সে মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ১১ হাজার ৪৯২ জনের এবং ফ্রান্সে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৫৬ লাখ ৬১ হাজার ৩৫২ জন। শনাক্তের দিক দিয়ে  ষষ্ঠ  অবস্থানে  তুরস্ক। তুরস্কে এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত হয়েছে  ৫৫ লাখ ৩৭ হাজার ৩৮৬ জন,  তুরস্কে  এ পর্যন্ত করোনায় মারা গেছে ৫০ হাজার ৬০৪ জন এবং এ পর্যন্ত  তুরস্কে সুস্থ হয়েছেন  ৫৩ লক্ষ ৯০ হাজারের অধিক মানুষ। ৭ম  স্হান  যুক্তরাজ্যে ( বৃটেন ) শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে বর্তমানে দাড়িয়েছে ৫৪ লক্ষ ৭৩ হাজার ৪৭৭ জন এবং যুক্তরাজ্যে মৃতের সংথ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে  ১ লাখ ২৮ হাজার ৭২৭ জন  -এখানে উল্লেখযোগ্য যে, বৃটেন ইউরোপের অন্যান্য দেশের তুলনায় সর্বাধিক মৃত্যুর দেশ  এবং বৃটেনে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪৪ লাখ ৪ হাজার ৪৬৫ জন । ৮ম স্হান দক্ষিণ আমেরিকার ২য় বৃহওম দেশ আর্জেন্টিনায় এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত হয়েছে ৪৭ লক্ষ ৬৯ হাজারের অধিক মানুষ,  আর্জেন্টিনায় মারা গেছেন এ পর্যন্ত ১ লাখ ১ হাজার ৯৫৫ জন এবং  আর্জেন্টিনায় এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪৪ লাখ ৭ হাজার ৮১৫ জন। ৯ম  স্হান কলম্বিয়ায় এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত হয়েছে ৪৬ লক্ষ ৫৫ হাজারের অধিক মানুষ,  কলম্বিয়ায় মারা গেছেন এ পর্যন্ত ১ লাখ ৭৯ হাজার ২০৮ জন এবং  কলম্বিয়ায় এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪৪ লাখ ৮ হাজার ২৬ জন। । দশম স্হান ইতালিতে এ পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছে ৪২ লাখ ৮৯ হাজার ৫২৮৮ জন , ইতালিতে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ১ লাখ ২৭ হাজার  ৮৭৪  জন এবং ইতালিতে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩৬ লাখ ৫৫ হাজারের অধিক মানুষ। একাদশ  স্হান স্পেনে এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত হয়েছে ৪১ লক্ষ ৬১ হাজারের অধিক মানুষ, স্পেনে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৮১ হাজার ১১৯ জন এবং স্পেনে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩৬ লাখ ৭২ হাজার ১০৯ জন। । শনাক্তের দিক থেকে দ্বাদশ স্হান  হল ইউরোপের সবচেয়ে শক্তিশালী অর্থনীতির দেশ জার্মানিতে  এ পর্যন্ত  শনাক্ত হয়েছে ৩৭ লাখ ৫৩ হাজার ৮৩৫ জন,  জার্মানিতে মৃতের সংথ্যা দাড়িয়েছে ৯১ হাজার ৯২১ জন  এবং জার্মানিতে সুস্থ হয়েছেন ৩৬ লক্ষ  ৪১ হাজারের অধিক মানুষ । ২০ জুলাই  ২০২১ খ্রী: মঙ্গলবার কানাডার সময় সকল ১১ টার রিপোর্টে বিশ্বে শনাক্তের দিক দিয়ে ২৫তম  স্থানে থাকা আয়তনের দিক থেকে পৃথিবীর ২য় বৃহওম দেশ ক্যানাডায়  করোনায় এ পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ১৪ লাখ ২৩ হাজার ৮৭৮ জন। এ পর্যন্ত ক্যানাডায় মারা গেছেন ২৫ হাজার ৫০৪ জন এবং এ পর্যন্ত কানাডায় সুস্থ হয়েছেন ১৩ লাখ ৯২ হাজার ৭৭৭ জন । বিশ্বে শনাক্তের দিক দিয়া ২৬তম স্থানে থাকা বাংলাদেশে এ পর্যন্ত করোনায় শনাক্ত হয়েছেন ১১ লাখ ২৮ হাজার ৮৮৯জন। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে মারা গেছেন ১৮ হাজার ৩২৫ জন এবং বাংলাদেশে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৯ লাখ ৫১ হাজার ৩৪০  জন।

অনেক অনেক হতাশার মধ্যেও আশার আলো এই যে. অনেক অনেক প্রতিক্ষার পর করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে কার্যকর ও নিরাপদভাবে রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে সক্ষম ফাইজার-বায়োএনটেক,মডারনার ভ্যাকসিন  দেওয়া  শুরু হয়েছে কানাডা, আমেরিকা, ইউরোীয়ান ইউনিয়ন,  মধ্যপ্রাচ্য সহ, জাপান, কোরিয়া সহ কয়েকটি দেশে ডিসেম্বর মাস থেকেই । বৃটেনে তৈরী Oxford and এট্রোজেনেকা, ভারতের তৈরী কোভে্কসিন ও কোভিশিল্ড দেওয়া শুরু হয়েছে জানুয়ারী মাসে। চিকিৎসা বিজ্ঞানের ইতিহাসে এত দ্রুত ভ্যাকসিন তৈরি এবং মানবদেহে প্রয়োগের এমন নজির আর নেই । রাশিয়ায় তৈরী স্পুটনিক ফাইভ ভ্যাকসিন ও চীনে তৈরী সিনোফার্ম ও সিনোভ্যাগ ভ্যাকসিনও নিজ নিজ দেশে ও অন্যান্য দেশে দেওয়া শুরু করেছে। কানাডার ৭৯.৭% মানুষ একটি ভ্যাকসিন এবং কানাডার ৫৭.৫% মানুষ দুই ডোজ ভ্যাকসিন  দিতে পেরেছে। , যুক্তরাষ্ট্রে ৫০% অধিক মানুষ ২ ডোজ ভ্যাকসিন নিয়েছে।

ভয় নয়, সচেতনতাই করোনা প্রতিরোধে কার্যকরী পদক্ষেপ । আমাদের নিরাপদে থাকার জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতেই হবে।চিকিৎসা বিজ্ঞানী ও বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, বাইরে চলাফেরার সময় আমরা প্রতিটি ব্যক্তি যদি মুখে মাস্ক ব্যবহার করি ও সাবান, পানি বা Hand sanitizer দিয়ে বারবার হাত ধোওয়ার চর্চা আয়ত্ত করি, আর যদি  দূরত্ব বজায় রাখতে পারি তাহলে, করোনার ঝুঁকি দ্রুত কমানো সম্ভব হবে । সবাই সুস্হ থাকুন, ভাল থাকুন ও স্বাস্হ্য বিধি মেনে চলুন। এখন মানুষের হৃদয়ের একমাএ প্রত্যাশা ও দাবী, কত তাড়াতাড়ি মানুষের জীবনে  স্বস্তি ফিরে আসবে, জীবন স্বাভাবিক হবে, আরও প্রত্যাশা কত তাড়াতাড়ি মানুষ করোনার Vaccine নিতে পারবে এবং জীবনযাত্রা স্বাভাবিক হবে। সৃষ্টির শ্রেষ্ঠতম জীব মানুষ কিন্তু উন্নতি ও এগিয়ে চলার সপ্ন ও আশা দিয়েই মানুষ বেঁচে থাকে । ২০২১ সাল বিশ্ব করোনামুক্ত হয়ে অর্থনৈতিক উন্নতির চাকা গতিশীল হবে এবং জীবনযাত্রা স্বাভাবিক হয়ে দিকে দিকে সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি ফিরে আসবে- এ প্রার্থনা ও প্রত্যাশা করছি সর্বান্তকরণে ।

তথ্য: ওয়ার্ল্ডোমিটার ( Worldometer )ও অন্যান্য সংবাদপত্র

সাবেক অধ্যাপক, লেখক ও সিবিএনএ’র উপদেষ্টা,  ২০ জুলাই ২০২১ খ্রী:


সর্বশেষ সংবাদ

দেশ-বিদেশের টাটকা খবর আর অন্যান্য সংবাদপত্র পড়তে হলে CBNA24.com

সুন্দর সুন্দর ভিডিও দেখতে হলে প্লিজ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

আমাদের ফেসবুক পেজ   https://www.facebook.com/deshdiganta.cbna24 লাইক দিন এবং অভিমত জানান

আপনার মন্তব্য লিখুন