বিনোদন

চলচ্চিত্র নির্মাতা ও পরিচালক সত্যজিৎ রায়ের  জন্ম বার্ষিকীতে 

কিংবদন্তি চলচ্চিত্র নির্মাতা ও পরিচালক সত্যজিৎ রায়ের  জন্ম বার্ষিকীতে  বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি

বিদ্যুৎ ভৌমিক, ২ মে ২০২১ ।  কিংবদন্তি ভারতীয় বাংগালী চলচ্চিত্র নির্মাতা, পরিচালক, চিত্রনাট্যকার, শিল্প নির্দেশক এবং লেখক সত্যজিৎ রায়ের শততম জন্ম বার্ষিকীতে তাঁর প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করছি। সত্যজিৎ রায়কে  বিংশ শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র নির্মাতাদের একজন হিসেবে গণ্য করা হয়।

বাংলা চলচ্চিএকে সত্যজিৎ রায় বিশ্ব মর্যাদায় উন্নীত করেছেন। ২ মে ১৯২১  সালে কলকাতা শহরে সাহিত্য ও শিল্প সমাজে খ্যাতনামা রায় পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন। তাঁর পিতা সুকুমার রায় একজন স্বনামধন্য কবি ও ছড়াকার ছিলেন । সত্যজিৎ রায়ের পূর্বপুরুষের ভিটা ছিল  বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার মসূয়া গ্রামে।সত্যজিৎ রায় কলকাতার প্রেসিডেন্সি কলেজ ও শান্তিনিকেতনে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর প্রতিষ্ঠিত বিশ্বভারতী বিশ্বিবদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন।  সত্যজিৎ রায় ৩৭টি পূর্ণদৈর্ঘ্য কাহিনীচিত্র, প্রামাণ্যচিএ ও স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিএ নির্মাণ করেন। চলচ্চিত্র মাধ্যমে সত্যজিৎ চিএনাট্য রচনা, চরিত্রায়ন, সঙ্গীত স্বরলিপি রচনা, চিত্রগ্রহণ, শিল্প নির্দেশনা, সম্পাদনা, শিল্পী-কুশলীদের নামের তালিকা ও প্রচারণাপত্র নকশা করাসহ নানা কাজ করেছেন। চলচ্চিত্র নির্মাণের বাইরে তিনি ছিলেন একাধারে কল্পকাহিনী লেখক, প্রকাশক, চিত্রকর, গ্রাফিক নকশাবিদ ও চলচ্চিত্র সমালোচক। যেন একই মহান ব্যক্তির মধ্যে বহুমুখী প্রতিভার মিলন ঘটেছিল। তাঁর বর্ণময় ও বহুমুখী প্রতিভাদীপ্ত কর্মজীবনে সত্যজিৎ রায়  বহু আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছেন, যার মধ্যে বিখ্যাত হল ১৯৯২ সালে পাওয়া অস্কার পুরস্কার, যা তিনি সমগ্র কর্মজীবনের স্বীকৃতি হিসেবে অর্জন করেন। এছাড়াও  সত্যজিৎ রায় ৩২টি জাতীয় চলচ্চিএ পুরস্কার, ১টি Golden Lion, ২টি Silver Bear পুরস্কার লাভ করেন । ১৯৯২ সালে ভারত সরকার তাকে ভারতের সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার ভারত রত্ন সম্মাননা প্রদান করেন। সত্যজিৎ রায় Oxford University থেকেও সম্মানসূচক ডিগ্রি লাভ করেন।  সত্যজিৎ রায়ের  নির্মিত প্রথম চলচ্চিত্র পথের পাঁচালী (১৯৫৫) ১১টি আন্তর্জাতিক পুরস্কার লাভ করেছিল, এর মধ্যে অন্যতম ছিল ১৯৫৬ সালে Cannes Film festival এ পাওয়া “শ্রেষ্ঠ মানব দলিল” (Best Human Documentary) পুরস্কার লাভ । তাঁর নির্মিতপথের পাঁচালী, অপরাজিত (১৯৫৬) ও অপুর সংসার (১৯৫৯) – এই তিনটি একত্রে অপু এয়ী নামে পরিচিত, এবং এই চলচ্চিত্র-ত্রয়ী সত্যজিতের জীবনের শ্রেষ্ঠ কর্ম হিসেবে বহুলভাবে স্বীকৃত আছে । বাংলাদেশ স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের খ্যাতনামা নায়িকা ববিতা ও সত্যজিৎ রায়ের পছন্দের কিংবদন্তি নায়ক সৌমিএ চ্যাটার্জিকে নিয়ে সত্যজিৎ রায়ের পরিচালনায় অশনি শংকেত ছায়াছবিও  আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছিল । হৃদযন্ত্রের জটিলতার কারণে ১৯৯২ সালের ২৩ এপ্রিল কিংবদন্তি চলচ্চিত্র নির্মাতা সত্যজিৎ রায় প্রায় ৭১ বছর বয়সে কলকাতায় মৃত্যুবরণ করেন। বাংলা চলচ্চিএে  তাঁর অনবদ্য অবদানের জন্য সত্যজিৎ রায় শ্রদ্ধার আসনে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন। কিংবদন্তি চলচ্চিত্র নির্মাতা ও পরিচালক সত্যজিৎ রায়ের  জন্ম বার্ষিকীতে  বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি

সূত্র : উইকিপিডিয়া, ১ মে ২০২১


সর্বশেষ সংবাদ

দেশ-বিদেশের টাটকা খবর আর অন্যান্য সংবাদপত্র পড়তে হলে CBNA24.com

সুন্দর সুন্দর ভিডিও দেখতে হলে প্লিজ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

আমাদের ফেসবুক পেজ   https://www.facebook.com/deshdiganta.cbna24 লাইক দিন এবং অভিমত জানান

আপনার মন্তব্য লিখুন